টাইম টিউন ডেস্ক
প্রকাশিত:
২০ অগাস্ট, ২০১৯ ০৫:২৭ পিএম


মিন্নিকে কেন জামিন দেয়া হবে না : হাইকোর্ট


মিন্নিকে কেন জামিন দেয়া হবে না : হাইকোর্ট

বরগুনায় আলোচিত রিফাত শরীফ হত্যার ঘটনায় গ্রেফতার মামলার প্রধান সাক্ষী ও থেকে আসামী বনে যাওয়া তার স্ত্রী আয়েশা সিদ্দিকা মিন্নিকে কেন জামিন দেয়া হবে তা জানতে রুল জারি করেছেন হাইকোর্ট। এবং এক সপ্তাহের মধ্যে এ রুলের জবাব দিতে সংশ্লিষ্টদের নির্দেশ দিয়েছেন আদালত। একই সঙ্গে মামলার তদন্ত কর্মকর্তাকে ২৮ আগস্ট আদালতে তলব করা হয়েছে।

মঙ্গলবার (২০ আগস্ট) বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি মো. মোস্তাফিজুর রহমানের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ দেন।

মিন্নির জবানবন্দির বিষয়ে বরগুনার পুলিশ সুপারের কাছে ব্যাখ্যা ও মামলার তদন্ত কর্মকর্তাকে (আইও) নথিসহ তলব করেছেন আদালত। আগামী ২৮ আগস্ট এ মামলার পরবর্তী শুনানির দিন ধার্য করা হয়েছে।

সোমবার এ মামলার আংশিক শুনানি শেষে বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি মো. মোস্তাফিজুর রহমানের হাইকোর্ট বেঞ্চ শুনানির জন্য আজকের দিন নির্ধারণ করেছিলেন।

মিন্নির পক্ষে আজ জামিন আবেদনটি উপস্থাপন করেন জ্যেষ্ঠ আইনজীবী জেডআই খান পান্না। তাকে সহযোগিতা করেন আইনজীবী মাক্কিয়া ফাতেমা ইসলাম। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল মো. সারোয়ার হোসেন।

২৬ জুন রিফাতকে বরগুনার রাস্তায় প্রকাশ্যে কুপিয়ে হত্যা করা হয়। সেই সময় স্বামীকে বাঁচাতে মিন্নির চেষ্টার ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে সারা দেশে আলোচনার সৃষ্টি হয়। পর দিন রিফাত শরীফের বাবা আবদুল হালিম দুলাল শরিফ ১২ জনকে আসামি করে মামলা করেন, তাতে প্রধান সাক্ষী করা হয়েছিল মিন্নিকে। পরে মিন্নির শ্বশুর ছেলে হত্যায় পুত্রবধূ মিন্নির জড়িত থাকার অভিযোগ তুলে সংবাদ সম্মেলন করলে ঘটনা নতুন দিকে মোড় নেয়।

১৬ জুলাই মিন্নিকে বরগুনার পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে ডেকে নিয়ে দিনভর জিজ্ঞাসাবাদের পর তাকে গ্রেফতার দেখানো হয়। মিন্নি আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেন বলে পুলিশ জানায়। পরে মিন্নি জবানবন্দি প্রত্যাহারের আবেদন করেন আদালতে। মিন্নির বাবার অভিযোগ, ‘নির্যাতন করে ও ভয়ভীতি দেখিয়ে মিন্নিকে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিতে বাধ্য করেছে পুলিশ।’


আপনার মতামত লিখুন :
বাংলাদেশ এর আরও খবর

আরো পড়ুন
ফ্রান্সে আশ্রয়প্রার্থীদের গ্রাম অঞ্চলের ক্যাম্পে স্থানান্তর শুরু!

ফ্রান্সে আশ্রয়প্রার্থীদের গ্রাম অঞ্চলের ক্যাম্পে স্থানান্তর শুরু!

ফ্রান্সে অভিবাসীদের গ্রামে স্থানান্তর করার প্রক্রিয়া শুরু করেছে ফ্রান্স সরকার।…

৮ বছর বয়সী ছাত্রকে যৌন নির্যাতনের দায়ে মাদ্রাসা শিক্ষক আটক

৮ বছর বয়সী ছাত্রকে যৌন নির্যাতনের দায়ে মাদ্রাসা শিক্ষক আটক

রাজশাহীর গোদাগাড়ীতে মাদরাসার দ্বিতীয় শ্রেণির এক ছাত্রকে যৌন নির্যাতনের দায়ে শিক্ষককে আটক…

পর্তুগাল আওয়ামী লীগ-বিএনপির রাজনৈতিক প্রতিহিংসার সংঘর্ষে আহত ৬ নিহত ১

পর্তুগাল আওয়ামী লীগ-বিএনপির রাজনৈতিক প্রতিহিংসার সংঘর্ষে আহত ৬ নিহত ১

পর্তুগাল গত ১৭ জানুয়ারি শনিবার রাজনীতি পূর্বশত্রুতার জের ধরে বিএনপির সভাপতি…

মা কোলে নিতেই নড়ে উঠলো মৃত বলে ফেলে রাখা নবজাতক!

মা কোলে নিতেই নড়ে উঠলো মৃত বলে ফেলে রাখা নবজাতক!

চুয়াডাঙ্গা শহরের হাসপাতাল সড়কের ‘উপশম নার্সিং হোম’-এ নরমাল ডেলিভারির মাধ্যমে…

সিরিয়া যুদ্ধ: ইদলিবে বিমান হামলায় নিহত ১৮

সিরিয়া যুদ্ধ: ইদলিবে বিমান হামলায় নিহত ১৮

সিরিয়ার ইদলিব প্রদেশে বিমান হামলায় অন্তত ১৮ বেসামরিক নাগরিক নিহত…

ঢাকা সিটি ভোট পিছিয়ে ১ ফেব্রুয়ারি

ঢাকা সিটি ভোট পিছিয়ে ১ ফেব্রুয়ারি

সরস্বতী পূজার্থীদের আন্দোলনের মুখে ঢাকার দুই সিটির ভোটের তারিখ পরিবর্তন…

বড়লেখায় একসাথে ৫ খুন

বড়লেখায় একসাথে ৫ খুন

মৌলভীবাজারের বড়লেখায় একই পরিবারের তিনজনসহ পাঁচজনকে কুপিয়ে হত্যা করা হয়েছে।…

জগন্নাথপুরের পৌর মেয়র চির নিদ্রায় শায়িত আব্দুল মনাফ

জগন্নাথপুরের পৌর মেয়র চির নিদ্রায় শায়িত আব্দুল মনাফ

সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুর পৌর সভার সদ্য প্রয়াত মেয়র আলহাজ্ব আবদুল মনাফকে…