রাগিব রব্বানি

প্রকাশিত:
০৫ জুলাই, ২০১৯ ০৮:২৯ পিএম


দাওরার পরীক্ষায় শিবির-সভাপতির অংশগ্রহণ : কী বলছে হাইআতুল উলয়া


দাওরার পরীক্ষায় শিবির-সভাপতির অংশগ্রহণ : কী বলছে হাইআতুল উলয়া

কওমি মাদরাসা শিক্ষাসনদের সরকারি স্বীকৃতির পর থেকে এ শিক্ষাধারার প্রতি অন্যান্য শিক্ষাধারায় পড়ুয়াদের আগ্রহ তৈরি হয়েছে তুমুল মাত্রায়। সেরেফ সনদ লাভের জন্য গত তিন বছর ধরে সম্মিলিত কওমি মাদরাসা শিক্ষাবোর্ড আল-হাইয়াতুল উলইয়া লিলজামিয়াতিল কওমিয়াহ বাংলাদেশের অধীনে অনুষ্ঠিত দাওরায়ে হাদিসের পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করছেন ইতিমধ্যেই 'মাওলানা' হয়ে যাওয়া অছাত্র কিংবা আলিয়া মাদরাসা শিক্ষাধারার শিক্ষার্থীদের উল্লেখযোগ্য একটি অংশ। হাইয়াভুক্ত বিভিন্ন মাদরাসা থেকে রেজিস্ট্রেশন করে তাঁরা পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে থাকেন।

অনুসন্ধানে দেখা গেছে মাদরাসার নিয়মিত ক্লাসে অনুপস্থিত থেকে পরীক্ষায় অংশগ্রহণকারী এসব পরীক্ষার্থীর উল্লেখযোগ্য একটি অংশ দেওবন্দ তথা কওমি মাদরাসার স্বকীয়তা এবং চিন্তা-চেতনার বিপরীত মতাদর্শ লালন করেন। তাঁদের পরীক্ষা দেওয়ার একমাত্র উদ্দেশ্য থাকে সরকারি 'সার্টিফিকেট' অর্জন।

সম্প্রতি কওমি চিন্তার তীব্র বিরোধিতাকারী দল জামায়াতে ইসলামীর অঙ্গসংগঠন বাংলাদেশ ইসলামী ছাত্রশিবিরের কেন্দ্রীয় সভাপতি ড. মোবারক হোসাইনের হাইয়াতুল উলইয়ার পরীক্ষায় অংশগ্রহণের ঘটনাকে কেন্দ্র করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তীব্র আলোচনা-সমালোচনা হচ্ছে। ড. মোবারক হোসাইন হাইয়াতুল উলইয়ার সদ্য বিগত দাওরায়ে হাদিসের কেন্দ্রীয় পরীক্ষায় টঙ্গীর সাতাইশ এলাকায় অবস্থিত আল-জামিয়াতুল উসমানিয়া দারুল উলুম নামক একটি মাদরাসা থেকে অংশগ্রহণ করেছেন। গত বুধবার হাইয়ার ফলাফল প্রকাশিত হলে দেখা যায় তিনি জায়্যিদ জিদ্দান বিভাগে উত্তীর্ণ হয়েছেন।

ফলাফল প্রকাশের পরপরই কওমি মাদরাসা পড়ুয়ারা এই ব্যাপারটি নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তীব্র প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেন। অনেকে অবশ্যি শিবিরসভাপতির পরীক্ষায় অংশগ্রহণকে ইতিবাচকভাবেও দেখছেন। তবে সমালোচনাকারীরা বলছেন, কওমি কেবল একটা শিক্ষাব্যবস্থাই নয়, এর সঙ্গে জড়িয়ে আছে স্বতন্ত্র চেতনা এবং ঐতিহ্য। আছে দেওবন্দের বিশুদ্ধ এবং বিশেষ চিন্তাধারা। এই চেতনা ও চিন্তার বিপরীতে অবস্থান করা লোকজন কোনোভাবেই এ শিক্ষাব্যবস্থার সর্বোচ্চ ডিগ্রি 'বাগিয়ে' নিতে পারেন না। তাছাড়া মাদরাসার নিয়মিত দরসে উপস্থিত না থেকে এমন ডিগ্রি অর্জন কওমি শিক্ষাধারার ঐতিহ্যের সঙ্গেও সাংঘর্ষিক। তাই তাঁদের দাবি অনিয়মিত কোনো ছাত্র কিংবা কোনো অছাত্র যেন আগামীতে দাওরায়ে হাদিসের পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে না পারে, এ ব্যাপারে হাইয়াতুল উলইয়া কর্তৃপক্ষকে কঠোর হতে হবে।

এই ধরনের অছাত্র কিংবা ভিন্ন শিক্ষাধারার অনিয়মিত ছাত্রের পরীক্ষায় অংশগ্রহণকে কীভাবে দেখছে জানতে কথা হয়েছিল হাইআতুল উলইয়ার অন্যতম সদস্য মুফতী নুরুল আমীনের সঙ্গে।

মুফতী নুরুল আমীন বলেন, ব্যাপারটা খুবই দুঃখজনক। কওমি মাদরাসার নিয়মিত এবং নির্দিষ্ট ছাত্র ছাড়া হাইয়াতুল উলইয়ার পরীক্ষায় অংশগ্রহণের বোর্ডের আইনে কোনোভাবেই যায় না। একই সঙ্গে বোর্ডের পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে হলে তাঁকে অবশ্যই ওলামায়ে দেওবন্দের বিশুদ্ধ আকিদা-বিশ্বাস এবং চিন্তা-চেতনায় লালিত হতে হবে। আইনতভাবে দেওবন্দি চিন্তাধারার বাইরের কারও সুযোগ নেই কওমি শিক্ষাবোর্ডগুলোর অধীনে অনুষ্ঠিত কোনো পরীক্ষায় অংশগ্রহণের।

মুফতী নুরুল আমীন আরও বলেন, 'হাইয়ার পরীক্ষায় অনিয়মিত এবং অছাত্রদের অংশগ্রহণ ঠেকাতে পরীক্ষার্থীদের রেজিষ্ট্রেশনের সময় কওমি মাদরাসার ছয় বোর্ডের যেকোনো এক বোর্ডের মেশকাত জামাতের রেজাল্টশিট সংযুক্তি বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। এ বছর থেকে এ বাধ্যবাধকতা আরও কঠোর মাত্রা পাবে।

শিবিরসভাপতিসহ এ ধরনের আরও যাঁরা যেসব মাদরাসার রেজিস্ট্রেশনে পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করেছেন বিগত বছরগুলোতে, সেসব মাদরাসার ব্যাপারে হাইয়া কোনো পদক্ষেপ গ্রহণ করবে কি না জানতে চাইলে মুফতি নুরুল আমীন বলেন, বোর্ডের আগামী মিটিংয়ে এ ব্যাপারে বিস্তারিত আলাপ হবে। কোন কোন মাদরাসা এ রকম কাজের সঙ্গে জড়িত, আপনারা যদি অনুসন্ধানমূলক প্রতিবেদন করে এর একটি তালিকা দাঁড় করাতে পারেন তবে আগামী মিটিংয়ে এদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নিতে আমি নিজেই সুপারিশ করব সর্বোচ্চ অথরিটির কাছে।


আপনার মতামত লিখুন :
শিক্ষা এর আরও খবর

আরো পড়ুন
শাহজালাল বিমানবন্দরে লাগেজ কাটার সময় ধরা খেল ৪ কর্মী

শাহজালাল বিমানবন্দরে লাগেজ কাটার সময় ধরা খেল ৪ কর্মী

অ্যারাবিয়ার একটি বিমান থেকে লাগেজ কেটে মালামাল চুরির সময় চারজনকে…

শিশুদের প্রতি যৌন নির্যাতনের সাজা মৃত্যুদণ্ড করতে যাচ্ছে ভারত

শিশুদের প্রতি যৌন নির্যাতনের সাজা মৃত্যুদণ্ড করতে যাচ্ছে ভারত

শিশুদের প্রতি যৌন নির্যাতন রুখতে কড়া পদক্ষেপ নিয়েছে ভারতের কেন্দ্রীয়…

সেনা কবরস্থানে এরশাদের দাফন আগামীকাল

সেনা কবরস্থানে এরশাদের দাফন আগামীকাল

জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান ও সংসদের বিরোধীদলীয় নেতা হুসেইন মুহম্মদের জানাজা…

আগের তুলনায় সীমান্তে হত্যা অনেকটা কমেছে
আগের তুলনায় সীমান্তে হত্যা অনেকটা কমেছে

আগের তুলনায় সীমান্তে হত্যা অনেকটা কমেছে

আগের তুলনায় সীমান্তে হত্যা অনেকটা কমে এসেছে বলে দাবি করেছেন…

ধর্ষণ রুখতে কঠোর আইন প্রণয়নের আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর

ধর্ষণ রুখতে কঠোর আইন প্রণয়নের আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর

ধর্ষণের বিরুদ্ধে কঠোর আইন প্রণয়ন করে অপরাধীদের কঠোর শাস্তি প্রদানের…

টিকটক ভিডিও বানানোর জন্য সুরমা নদীতে ঝাঁপ দিয়ে নিখোঁজ কিশোর, ৪৮ ঘন্টা পর মিলল লাশ

টিকটক ভিডিও বানানোর জন্য সুরমা নদীতে ঝাঁপ দিয়ে নিখোঁজ কিশোর, ৪৮ ঘন্টা পর মিলল লাশ

সাম্প্রতিক সময়ে ভাইরাল হওয়া জনপ্রিয় গান ‘তরে ভুলে যাওয়ার লাগি…

সিলেট দিন দুপুরে ছিনতাই গোলাপগঞ্জে টাকাসহ আটক ৩

সিলেট দিন দুপুরে ছিনতাই গোলাপগঞ্জে টাকাসহ আটক ৩

সিলেটের শাহপরাণ থেকে টাকা ছিনতাই করে পালিয়ে যাওয়ার সময় ধাওয়া…

‘পদ্মা সেতুর জন্য মাথা লাগবে’ গুজবে আটক ১

‘পদ্মা সেতুর জন্য মাথা লাগবে’ গুজবে আটক ১

ছেলে ধরা নিয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে স্ট্যাটাস ও ম্যাসেঞ্জারের…