সাংবাদিক : ইকবাল হাসান জাহিদ
সিলেট
প্রকাশিত:
০৪ মে, ২০১৯ ০২:৪৪ এএম


উজানীর জিকির আর আজহারীর মিথ্যাচার দুইটাই শুধরানো দরকার


উজানীর জিকির আর আজহারীর মিথ্যাচার দুইটাই শুধরানো দরকার

উজানীর পীর নামে এক পীর সাহেব ইদানীং জিকিরের মজলিসে ভন্ডামীতে গ্যস উদ্দিন তাহেরীকে হারাতে যাচ্ছেন মনে হচ্ছে। তিনি শুনেছি কওমী ঘরাণার আলেম। শুনেছি একজন ভালো মানের পীরও। কিন্তু জিকিরের নামে যে নতুন ভন্ডামীর জন্ম দিচ্ছেন তিনি এবং স্বজ্ঞানে ভিডিওগুলো ভাইরাল করাচ্ছেন। তাতে করে সৃষ্ট নতুন ফিতনার দায়ভারতো তাকেই নিতে হবে।

আমাদের বাংলাদেশে আমরা যারা টুকটাক লেখালেখি করি। একটা জিনিস আমরা অনুভব করলাম। আমাদের কোনো অনুভুতি, পরামর্শ, পর্যালোচনা কিংবা সমালোচনা যখন কোনো গ্রুপ কিংবা মতাদর্শের নেতৃস্থানীয় কারো বিপক্ষে চলে যায়, কিংবা নিজেদের পছন্দের বক্তা ও ওয়াইজের বিপক্ষে চলে যায়, তখন সংশ্লিষ্ট গ্রুপ বা মতাদর্শী ভক্তবৃন্দদের প্রতিক্রিয়া হয়ে উঠে হিংস্র ও জঘণ্য।

আরও পড়ুন > ভার্সিটির মাল সিক্সপ্যাক হুজুরের আসল মুখোশ

গতকাল জনাব মিজানুর রহমান আজহারীর তাবলীগ জামাত সম্পর্কে কিছু মিথ্যাচার ও ভন্ডামী বক্তব্যের ভিডিওক্লিপ্স পোস্ট করেছিলাম। (আমি এর আগে আরো ২ বারি তার বক্তব্যের সমালোচনা করে পোস্ট দিয়েছিলাম।) তখন দেখলাম মিজান সাহেবের অন্ধ ভক্তদের হিংস্র আচরণ কত প্রকার ও কি?

ঘটনা হইলো, আমি বা আমরা আগে জানতাম এই দেশে ভান্ডারী বা মাজারপুজারী গ্রুপের অনুসারীদের ইতরামী আর অশিক্ষিত বর্বর আচরণই একস্ট্রিম পর্যায়ের। কিন্তু আমার ধারণা আসলেই ভুল ছিল। কারণ আমি বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন মত বা আদর্শের কিছু যৌক্তিক পর্যালোচনা বা সমালোচনা করে থাকি। এই সুবাধে আমি কয়েকটা মতের ব্যাপারে মন্তব্য করে অভিজ্ঞতা মুটামোটি অর্জন করেছি।

আরও পড়ুন > এবার আল্লাহ ও রাসূলকে নিয়ে ব্যঙ্গ করলেন বক্তা মিজানুর

বিশেষত: আজহারী এবং ভার্সিটির মাল আমির হামজাকে নিয়ে লেখার পরে আমি যে প্রতিক্রিয়া পেয়েছি, কমেন্টে এবং ইনবক্সে, তা ভাষায় প্রকাশ করা দুঃসাধ্য।

সাথে একটা মজার ব্যাপর শেয়ার করবো, গতকাল আমার পোস্টের পরে ঢাকার এক নামকরা প্রকাশক আমার অনেক প্রিয় মানুষ মিস্টার মিজানুর রহমান আজহারীর ভন্ডামী বক্তব্যে ব্যাপারে একটা পোস্ট দিয়ে বলেছিলেন- “মিজান সাহেবের উচিত এই রকমের লাগামহীন বক্তব্য বাদ দিয়ে তাওবা করা”। আমি তাঁর সাথে একমত। কারণ মাওলানা দেলওয়ার হুসাইন সাঈদী তাঁর সারা জীবনে একবারও যে সকল ভাষা এবং আপত্তিকর ভন্ডামী শব্দ ও বাক্যের উচ্চারণ করেননি মিস্টার আজহারী মাত্র কয়েক মাসে অনেক বেশি অশালীন অরুচিকর ভণ্ডামী ও বেআদবীমূলক শব্দ ইউজ করে সমালোচনার পাত্র বনে গেছেন। মজার ব্যাপার হলো ঐ প্রকাশক ভদ্রলোক আজহারী সাহেবের অতি শিক্ষিত মর্ডাণ অনুসারীদের অব্যাহত হুমকি আর গালাগাল সহ্য করতে না পেরে তিনি শেষমেষ পোস্ট ডিলিট দিতে বাধ্য হয়েছেন। অবশ্য আমি স্ক্রিণশর্ট নিয়েই রেখেছিরাম।

মজার ব্যাপার আরেকটা শেয়ার করবো- আমরা গত ৩/৪ বছর আগে বাংলাদেশে হেলিকপ্টার হুজুর বলতে মাওলানা হাফিজুর রহমান কুয়াকাটাকেই চিনতাম। তার পরে আলোচনায় এলেন মাওলানা হাবিবুর রহমান মিসবাহ ভাই। এবং এই দুইজনকে দেশের একটা শ্রেণির লোক পঁচানোর জন্য লুঙ্গি মাথায় বেঁধে রাস্তায় ছিলো। আমি যার সাক্ষী। তারা বলতো দাঈ এমন হলে জাতী করবে কী? খাবে কেমনে? অমুক চিন্তাবীদ এই করেছেন, তমুক মুজাদ্দিদ সেই করেছেন।অবশ্য আমিও হেলিকপ্টারে করে ওয়াজে যাওয়ার ঘোর বিরোধী। তখনও ছিলাম এখনও আছি।

কিন্তু মজার ব্যাপার হলো, ঐ সকল ভন্ড সমালোচকরা আজ মিস্টার আজহারীর হেলিকপ্টার বিলাস দেখে মুখে কুলুপ এটে বসে আছে। এখন তাদের বক্তব্য হলো দাওয়াতের জন্য এটা জায়েজ। এবং তারাই সেদিন অসুস্থ আল্লামা শফিকে নিয়ে ট্রল করেছিলো। তবে আমি এই অপেক্ষায়, তারা আগামীতে এও বলে কী না যে, দাওয়াতের জন্য হেলিকপ্টার ওয়াজিব।

বলা শুরু করেছিলাম, উজানীর পীর সাহেবের জিকিরীয় ভন্ডামী দিয়ে। আমি জানি না, তিনি এই নতুন ধারার পীরাকী জিকির পাইলেন কই? আমরা যারা গলা ফাটিয়ে দেওয়ানবাগী মাইজভান্ডারীদের ভন্ড বলে চিল্লাই সেই তাদের আদর্শ, তাদের কালচার তাদের কুসংস্কারটাই যদি আমাদের হকীকী আলেমদের মাঝে চলে আসে তবে আস্তার জায়গাটুকু আমাদের থাকে কই?

কওমী ধারায় আরো দুই ভন্ড রয়েছেন- এক: ইলিয়াসুর রহমান জিহাদী, দুই: আব্দুল খালেক শরীয়তপুরী। উনাদের ভাষাভঙ্গিগুলোর কাছে সিনেমার কমেডিও হার মানে। এদের ভন্ডামী থেকে বের হতে হবে।

শেষমেষ যে কথা বলব, জনাব আজহারী, কণ্ঠ সুন্দর আছে আপনার, কারণ শুনেছি এককালে শিল্পী ছিলেন। এই বাজারে শিল্পীদের ডিমান্ড বেশি। আপনার আগের তারেক মোনাওয়ার আপাতত ডেট অভারে। বিতর্কিত বক্তব্য আর লাগামহীন মন্তব্য করে। সেই তিনিও ভন্ডামী করে বলেছেন- আল্লামা সাঈদীকে চাঁদে দেখা গেছে।এবং তিনি এই ব্যাপারে দলিলও দিয়েছেন। আর বলেছিলেন “লা-ইলাহা ইল্লাল্লাহ মুহাম্মাদুর রাসুলুল্লাহ একসাথে বলা শিরক। আজ তারেক সাহেব ফুটো।অনেকটা ডেট অভার। 
আপনার সবেমাত্র ফুল থেকে ঘ্রাণ বের হতে শুরু করেছে। শুনেছি 2004 সালে দাখিল পাশ করেছেন। এখনও বয়স ৪০ এর কোটা পার হয় নাই। অহংকার ভেতরে থেকে ঝেড়ে ফেলেন। বেআদবীমূলক ভাষা পরিহার করেন। মিথ্যার বেশাতী ঘটিয়ে বক্তব্য দেওয়া বন্ধ করেন। দেখবেন আপনার ওলিদের মতো আপনিও বহুযুগ থাকবেন। নাইলে পঁচতে শুরু করেছেন, দ্রুত পঁচে যাবেন।

আর আমাদের কারো সাথে জনাব পীরে কামেল ওজানীর সাথে সম্পর্ক থাকলে জানিয়ে দেবেন, এই দেশে কওমী ধারায় নতুন ভন্ডামীর জন্ম দিয়েন না। নইলে জাতী ক্ষমা করবে না।


আপনার মতামত লিখুন :
মতামত এর আরও খবর

আরো পড়ুন
ভাতগাঁও ইউনিয়নে চেয়ারম্যান মেম্বারের ভুয়া তালিকায় ৭০বস্তা চাল আত্মসাতের অভিযোগ 
 ৮ ও ৯ নং ওয়ার্ড

ভাতগাঁও ইউনিয়নে চেয়ারম্যান মেম্বারের ভুয়া তালিকায় ৭০বস্তা চাল আত্মসাতের অভিযোগ 

ছাতকের ভাতগাঁও ইউনিয়নের ৮ ৯ নং ওয়ার্ডে ত্রাণের চাউল বিতরণের…

দিরাইয়ে বন্দুকধারীর গুলি ৭ জন গুলিবিদ্ধ ;থানায় অভিযোগ

দিরাইয়ে বন্দুকধারীর গুলি ৭ জন গুলিবিদ্ধ ;থানায় অভিযোগ

 কথায় কথায় বন্দুক, কথায় কথায় গুলি এ হলো দিরাই উপজেলার…

ইউসুফ আলীর বিরোদ্ধে আনিত অনিয়মের অভিযোগ প্রমাণিত

ইউসুফ আলীর বিরোদ্ধে আনিত অনিয়মের অভিযোগ প্রমাণিত

দক্ষিণ সুরমা উপজেলার জালালপুর ইউনিয়নের ৬ নং ওয়ার্ড মেম্বার ইউসুফ…

রাতের আঁধারে ঘরে ঘরে ঈদ উপহার নিয়ে আল-ইখওয়ান এডুকেশন ট্রাস্ট

রাতের আঁধারে ঘরে ঘরে ঈদ উপহার নিয়ে "আল-ইখওয়ান এডুকেশন ট্রাস্ট"

করোনার ভয়াল থাবায় পুরো দেশে অচলাবস্থা বিরাজমান। যার ফলে শ্রমজীবী,…

মুখোশ মূর্তি : শায়েন্তা মজুমদার

মুখোশ মূর্তি : শায়েন্তা মজুমদার

মুখোশ মূর্তি শায়েন্তা মজুমদার   লিখেছি পদ্য, লিখেছি গদ্য, পটে…

জন্মদিনে ঈদ উপহার নিয়ে ঘরে ঘরে চবি ছাত্রলীগ নেতা দিনার

জন্মদিনে ঈদ উপহার নিয়ে ঘরে ঘরে চবি ছাত্রলীগ নেতা দিনার

প্রাণঘাতি করোনাভাইরাসের কারণে কাজ হারিয়ে মানবেতর জীবন কাটাচ্ছে নিম্ন আয়ের…

শুভ জন্মদিন “অনিক শুভ”

শুভ জন্মদিন “অনিক শুভ”

ওষুধ বিজ্ঞানী হলেও বাংলা সাহিত্যের পাঠকপ্রিয় লেখক “অনিক শুভ”। ওষুধ…

মুক্তিযোদ্ধা প্লাটুন কমান্ডার আব্দুল মান্নান স্মৃতি পরিষদের খাদ্য সামগ্রী বিতরণ 

মুক্তিযোদ্ধা প্লাটুন কমান্ডার আব্দুল মান্নান স্মৃতি পরিষদের খাদ্য সামগ্রী বিতরণ 

সিলেট শহরতলীর বড়গুল এলাকায় মুক্তিযোদ্ধা প্লাটুন কমান্ডার আব্দুল মান্নান স্মৃতি…