আন্তর্জাতিক ডেস্ক
প্রকাশিত:
০৬ অক্টোবর, ২০১৯ ১০:২৩ এএম


কাশ্মীরে ক্যান্সারের রোগীকেও ধরে নিয়ে গেছে ভারতীয় বাহিনী


কাশ্মীরে ক্যান্সারের রোগীকেও ধরে নিয়ে গেছে ভারতীয় বাহিনী

ভারতীয় হানাদার বাহিনীর হাত থেকে নিস্তার পাননি কাশ্মীরের ক্যান্সারাক্রান্ত যুবকও। স্বায়ত্তশাসন কেড়ে নেওয়ার কয়েকদিনের মাথায় পারভেজ আলম পালা (৩৩) নামক ওই যুবককে কাশ্মীরের মাটিবাগের গ্রামের তার নিজ বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে যায় ভারতীয় হানাদার বাহিনী। এখন তিনি বেঁচে আছেন নাকি মারা গেছেন, বেঁচে থাকলে কোন কারাগারে আছেন, কিছুই জানে না তাঁর পরিবার।

পালার বাবার নাম মোহাম্মদ আইয়ুব আলী। নামের ৬০ বছর বয়সী এই কাশ্মীরি বৃদ্ধ জানেন না, গত আগস্টে আটক তার ক্যান্সারে আক্রান্ত সন্তান বেঁচে আছেন কিনা মরে গেছেন। বৃদ্ধ বাবার নিজের শরীরও ভালো নেই। খবর আল-জাজিরার।

অধিকৃত রাজ্যটির স্বায়ত্তশাসনের অধিকার কেড়ে নেয়ার কয়েকদিন পরেই তিনি আটক হন। কাশ্মীরে তখন থেকেই যোগাযোগ অচলাবস্থা চলছে। ইন্টারনেট ও মোবাইল সংযোগ বন্ধ করে দেয়া হয়েছে।

শনিবার সেই অচলাবস্থা তিন মাসে পড়েছে। আইয়ুব আলী পালা বলেন, সেদিন রাতে নিরাপত্তা বাহিনী আমাদের বাড়িতে ঢোকে এবং তাকে তুলে নিয়ে যায়। আমি পিছু পিছু ছুটতে চাইলে তারা আমাকে লাথি মেরে মাটিতে ফেলে দেয়। এরপর তাকে একটি গাড়িতে তুলে নিয়ে চলে যায়।

পারভেজের আট ও ১০ বছর বয়সী দুই ছেলে রয়েছে। তিনি ক্যান্সারের রোগী হওয়ায় তাকে প্রাণরক্ষাকারী ওষুধের ওপর নির্ভর করতে হচ্ছে। ২০১৪ সালে তার শরীরে প্যাপিলারি থাইরয়েড ক্যান্সার ধরা পড়ে। এরমধ্যে তাকে অস্ত্রোপচারের মধ্য দিয়েও যেতে হয়েছে। এছাড়াও তার ত্বকের রোগ রয়েছে। একটি হাত পক্ষাঘাতগ্রস্ত। শের-ই-কাশ্মীর ইনস্টিটিউট অব মেডিকেল সায়েন্সেস এর নিউক্লিয়ার মেডিসিন বিভাগ পারভেজের চিকিৎসা সনদ দিয়েছে।

২০১৫ সালের জুলাই থেকে তাকে উচ্চডোজের চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। নিয়মিতভিত্তিতে তার হাসপাতালে যাওয়ার কথা থাকলেও গত দুই মাস ধরে তিনি চিকিৎসা বঞ্চিত। কাজেই তার শরীরের অবস্থা সম্পর্কে কোনো ধারনা নেই পরিবারের। জননিরাপত্তা আইনের অধীনে মামলা হয়েছে পারভেজের বিরুদ্ধে।

কাজেই এই মামলায় কোনো ধরনের জামিন ছাড়াই দুই বছর পর্যন্ত কারাগারে আটকে রাখা সম্ভব।

উত্তর প্রদেশের বেরেলিতে একটি কারাগারে আটকে রাখা হয়েছে তাকে। অসুস্থ সন্তানের সঙ্গে পরিবারকেও দেখা করতে দেয়া হচ্ছে না।

তার বাবা বলেন, গত ১৭ আগস্ট ছেলের সঙ্গে দেখা করতে গিয়েছিলাম আমি। কিন্তু কারা কর্তৃপক্ষ আমাকে অনুমোদন দেননি। তাকে ওষুধ ও পোশাক দিতে আবেদন করলেও কেউ সহায়তা করেনি। তিন দিন চেষ্টার পর ভাঙা মন নিয়ে আমাকে ফিরে আসতে হয়েছে।

ছেলে জীবিত নাকি মৃত তা জানা নেই জানিয়ে তিনি বলেন, উত্তরপ্রদেশ ভ্রমণ করা কোনো সহজ কাজ না। আমি কখনোই ওই এলাকায় এর আগে যাইনি। নিজে অশিক্ষিত হওয়ায় গ্রামের আরেকজনকে সঙ্গে নিতে হয়েছে। তার খরচও আমাকে বহন করতে হয়েছে। কাজেই সেখানে ফের যাওয়ার মতো অর্থ আমার হাতে নেই।

তিনি আরও বলেন, ঘুমানের আগে যদি তার ত্বকে মলম মাখা না হয়, তবে তা তার জন্য মারাত্মক যন্ত্রণাদায়ক হয়। তার চামড়া উঠে যেতে থাকে। কাজেই তাকে নিয়ে আমরা ব্যাপক দুশ্চিন্তায়।


আপনার মতামত লিখুন :
আরো পড়ুন
সিলেটের সাংস্কৃতিক সংগঠন বিএফ ভির চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে বলাৎকারের অভিযোগ

সিলেটের সাংস্কৃতিক সংগঠন বিএফ ভির চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে বলাৎকারের অভিযোগ

সিলেটের ইসলামিক সাংস্কৃতিক সংগঠন বিএফ ভি “বাংলা ফিউচার ভয়েস” -এর…

সবচেয়ে কম খরচে ইমরানের বিদেশ সফর

সবচেয়ে কম খরচে ইমরানের বিদেশ সফর

ওয়ার্ল্ড ইকোনোমিক ফোরামের সম্মেলনে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী হিসেবে নিজের সফরকে সবচেয়ে…

নবীগঞ্জের সঈদ পুর বাজারের সিএনজি স্ট্যান্ড নিয়ে দুগ্রুপের সংঘর্ষ আহত ২০

নবীগঞ্জের সঈদ পুর বাজারের সিএনজি স্ট্যান্ড নিয়ে দু'গ্রুপের সংঘর্ষ আহত ২০

হবিগঞ্জের নবীগঞ্জ উপজেলার ৫নং আউশকান্দি ইউনিয়নের সঈদ পুর বাজার সিএনজি…

বঙ্গবন্ধুকে উৎসর্গ করে চবিতে শুরু মার্কেটিং কাপ

বঙ্গবন্ধুকে উৎসর্গ করে চবিতে শুরু মার্কেটিং কাপ

জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকীকে স্মরণীয় করে রাখতে…

তিন তলা থেকে পড়ে শ্রমিকের মৃত্যু

তিন তলা থেকে পড়ে শ্রমিকের মৃত্যু

সাভারের আশুলিয়ায় একটি ভবনের তিন তলা থেকে পড়ে রাস্তার উপর…

মৌলভীবাজারে অগ্নিকাণ্ডে একই পরিবারের পাঁচ জনের মৃত্যু

মৌলভীবাজারে অগ্নিকাণ্ডে একই পরিবারের পাঁচ জনের মৃত্যু

মৌলভীবাজার শহরের এম সাইফুর রহমান রোডে একটি ভবনে ভয়াবহ অন্ডিকাণ্ডের ঘটনা…

মোদী ঢাকায় আসছেন ১৭ মার্চ

মোদী ঢাকায় আসছেন ১৭ মার্চ

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকীর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকবেন ভারতীয়…

সীমান্তে হত্যার প্রতিবাদে জাবি ছাত্রের অনশন

সীমান্তে হত্যার প্রতিবাদে জাবি ছাত্রের অনশন

বাংলাদেশ-ভারত সীমান্তে হত্যার প্রতিবাদে আমরণ অনশন বসেছেন এক বিশ্ববিদ্যালয়শিক্ষার্থী। আরিফুল…